প্রদর্শনীর উদ্যোক্তা ও অংশগ্রহণকারীরা এক ফ্রেমে
Share it

নিউজ ওয়েভ ইন্ডিয়া: শুক্রবার থেকে দক্ষিণ কলকাতার যোধপুর পার্কের সন্নিকটে গ্রুভ ইন-এ শুরু হয়েছে দু’দিন ব্যাপী হস্তশিল্প সামগ্রীর প্রদর্শনী। কোথাও পাওয়া যাচ্ছে সুগন্ধী চা। কোথাও হ্যান্ডমেড জুয়েলারি, আবার কোথাও বাংলার হ্যান্ডলুমের শাড়ি, কুর্তি- চুড়িদার। তবে এই প্রদর্শনী আর পাঁচটা হস্তশিল্প প্রদর্শনীর থেকে একেবারেই আলাদা। এই প্রদর্শনী আয়োজিত হয়েছে মহিলা পরিচালিত বাণিজ্য সংগঠন WICCI বা উওমেন ইন্ডিয়ান চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির উদ্যোগে। শুধু ভারতীয় মহিলা শিল্পোদ্যোগীরাই নন ওপার বাংলা থেকেও বেশ কয়েকজন শিল্পোদ্যোগী এই প্রদর্শনীতে অংশ নিয়েছেন। প্রধানত দুই বাংলার মহিলা উদ্যোগপতিদের কাজ বিশ্বের দরবারে তুলে ধরাই WICCI-মূল উদ্দেশ্য। গত দুবছরেরও বেশি সময় কোভিড পরিস্থিতির কারণে এই ধরনের প্রদর্শনী আয়োজন করা সম্ভব হয়নি। তবে এবার এই প্রদর্শনীর আয়োজন করতে পেরে খুশি ইস্টার্ন রিজিওনাল কাউন্সিলের সভাপতি মঞ্জুলা জৈন ও সহ সভাপতি ইন্দু গান্ধী।

প্রদর্শনীর অন্যতম উদ্যোক্তা ও WCCI ভারত-বাংলাদেশ বাণিজ্য পরিষদের সভাপতি শর্মিষ্ঠা রাহা জানালেন, উদ্যোগপতিদের মধ্যে বিশেষ করে ব্যবসায়ী মহিলাদের একটা প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে দেওয়াই তাঁদের এই সংগঠনের মূল উদ্দেশ্য। তবে সবকিছুর ওপরে ডঃ হারভিন অরোরা রাইয়ের বিশেষ ভূমিকা রয়েছে বলেও উল্লেখ করেছেন শর্মিষ্ঠা রাহা।

কোভিডের সময় থেকে নিজের উদ্যোগে ব্যবসা শুরু করেছেন কলকাতার মহিলা উদ্যোগপতি স্বাতী আলমল ও ডিম্পি পান্ডে। এই প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে তাঁদের বিভিন্ন প্রাকৃতিক গুনসম্পন্ন হেলথ ও বিউটি প্রোডাক্ট। রয়েছে ভেষজগুন সম্পন্ন চা-পাতাও।

কোভিডের সময় নিজের চিজ বুটিক খুলেছেন কবিতা কাপুর। কলকাতায় এই ধরনের চিজ বুটিকের কনসেপ্ট আগে ছিল না বললেই চলে। বর্তমানে ৯টি ব্র্যান্ড চালাচ্ছেন কবিতা কাপুর। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে অনলাইনে ডেলিভারি দিচ্ছেন তাঁর এই বুটিক চিজ।

যাঁরা চা পান করতে ভালোবাসেন, তাঁরা ট্রাই করতে পারেন চায়ে এক্সপেরিয়েন্সের ফ্লেভার্ড চা। এই চা পাতার বিশেষ বিশেষ ফ্লেভার আপনাকে তাজা অনুভূতি দেবে নিমেষে। সংস্থার কর্ণধার আরতি খান্না জানালেন আর্টটিজ ব্র্যান্ডে পাওয়া যাচ্ছে তাঁর এই চা।

এছাড়াও বাংলার হ্যান্ডলুমের কাপড়, হ্যান্ডমেড মেটাল জুয়েলারি, পেইন্টিংয়ের স্টলও নজর কেড়েছে এই প্রদর্শনীতে। শনিবার বাংলাদেশের বেশ কয়েকজন উদ্যোগপতিও থাকবেন এখানে। সুতরাং দেরি না করে দুই বাংলার মহিলা উদ্যোগপতিদের অসাধারণ সম্ভারের অভিজ্ঞতা অর্জন করতে চলে আসতেই পারেন গ্রুভ ইন-এ।

Share it